Saturday , September 23 2017
শিরোনাম
হোম / বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি / নারীবিদ্বেষী টুইটের অর্ধেক করেন নারীরা!

নারীবিদ্বেষী টুইটের অর্ধেক করেন নারীরা!

বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অপব্যবহার বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে যুক্তরাজ্যের পাঁচজন সংসদ সদস্য—ইভেট্টে কুপার, মারিয়া মিলার, স্টেলা ক্রেসি, জো সুইনসন ও জেস ফিলিপস মিলে এক ইন্টারনেট প্রচারণা শুরু করেছেন। এর পরপরই সে দেশের চিন্তক প্রতিষ্ঠান (থিংক ট্যাংক) ‘ডেমোস’ এ-সংক্রান্ত এক গবেষণা চালায়। তিন সপ্তাহজুড়ে সামাজিক খুদে ব্লগ লেখার ওয়েবসাইট টুইটারে নারীবিদ্বেষী দুটি শব্দ (স্লাট ও হোর) কতবার ব্যবহৃত হয়েছে, তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। ব্যাপক মাত্রায় নারীবিদ্বেষী টুইট ধরা পড়েছে তাতে। গবেষণা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, এই টুইটগুলোর অর্ধেক করেছেন নারীরা।

8495986781dc47be128f001ddd91dbf6-4দেখা গেছে, শুধু যুক্তরাজ্যেই ৬ হাজার ৫০০ ব্যবহারকারী মোট ১০ হাজার নারীবিদ্বেষী বার্তা (টুইট) লিখেছেন। সংসদ সদস্যদের এই প্রচারণার পক্ষ থেকে অনলাইনে একটি ফোরাম খোলা হয়েছে। সেখানে ইন্টারনেটে আক্রমণাত্মক এবং লিঙ্গবৈষম্য, বর্ণবৈষম্যের মতো বিষয়গুলো কমিয়ে আনতে কী কী করা যেতে পারে, তা নিয়ে আলোচনার সুযোগ রাখা হয়েছে।

ডেমোসের এই গবেষণা সারা বিশ্বের টুইটগুলো খতিয়ে দেখেছে। আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে লেখা টুইট আর সাধারণ কথোপকথনের মতো শোনায় এমন টুইট আলাদা করতে অ্যালগরিদম ব্যবহার করেছে ডেমোস। ফলাফলে দেখা গেছে, ওই শব্দ দুটি ব্যবহার করে গবেষণা চলাকালীন আক্রমণাত্মক ২ লাখ টুইট করা হয়েছে এবং সেগুলো বিশ্বের ৮০ হাজার মানুষের কাছে পাঠানো হয়েছে।

গবেষণাটি সম্পর্কে গবেষক অ্যালেক্স ক্রাসোদোমস্কি জোনস বলেছেন, মেয়েদের কতটা ব্যক্তিগত এবং আঘাতমূলক অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যেতে হয়, তার সম্পর্কে মোটামুটি একটা ধারণা পাওয়া যায় এই গবেষণা থেকে। তিনি বলেন, ‘ইন্টারনেট ব্যবহারের নির্দেশনা দেওয়া নয়, বরং বাস্তবে আমরা যতটা ভালো নাগরিক, অনলাইনে যে ততটা নই, তা সবাইকে মনে করিয়ে দিতেই এই গবেষণা।’

টুইটারের সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যাক ডরসি বলেছেন, টুইটারে টুইটের অপব্যবহার করে যে বিদ্বেষ ছড়ানো হচ্ছে, তা নিয়ন্ত্রণে আনার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।

Check Also

ইরমার জন্য পিছতে পারে বাংলাদেশের প্রথম উপগ্রহের উৎক্ষেপণ

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : আমেরিকা ও ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জে প্রলয়ঙ্করী হারিকেন ‘ইরমা’র তাণ্ডবে পিছিয়ে যেতে পারে বাংলাদেশের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *