Saturday , September 23 2017
শিরোনাম
হোম / খেলার ভূবন / রিয়াল-আটলেটিকো ম্যাচে ‘চার ফ্যাক্টর’

রিয়াল-আটলেটিকো ম্যাচে ‘চার ফ্যাক্টর’

ক্রীড়া প্রতিবেদক
real
বার্সেলোনা থেকে রিয়াল মাদ্রিদের খেলার ধরন সম্পূর্ণ ভিন্ন। পাস দাও আর ছোটো ক্ষিপ্র গতিতে।প্রতিআক্রমণে চোখের নিমেষে ডিফেন্সকে করে দেয় তছনছ।আর জটিল দল আটলেটিকো। কখনও রক্ষণাত্মক, কখনও আক্রমণাত্মক। সহজে হার মানতে জানে না তারা। রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল। যে ম্যাচে বেশ কিছু ‘ফ্যাক্টর’ নিচে তুলে ধরা হলো-

জিদান-ফ্যাক্টর

জিদান দারুণ বুদ্ধিদীপ্ত ফুটবল খেলতেন। রিয়ালের মতো মেগা টিমের কোচিংয়ে এসেও সে রকমই বুদ্ধিদীপ্ত সব ট্যাকটিক্স নিচ্ছেন। জিদান খুব বেশি কিছু বদলাননি রিয়ালে। ছকটা মোটামুটি একই রেখেছেন। তবে পরিস্থিতি অনুযায়ী সেই ছকের সামান্য অদল-বদলে ম্যাচের রং পাল্টে দিতে পারে। এবং দিচ্ছেও। জিদানের সবচেয়ে বড় গুণ— অসামান্য ম্যাচ রিডিং।

দ্য গ্রেট ওয়াল অব আটলেটিকো

মেসি থেকে মুলার। সুয়ারেজ থেকে লেভানডস্কি। নেইমার থেকে রিবেরি। এ বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে কোন মহাতারকা না আটকেছে এই দেওয়ালে? বারবার ধাক্কা খেয়ে ফিরে গিয়েছে? আটলেটিকো মাদ্রিদ দলটার ভিত-ই ডিফেন্স। দিয়েগো গদিন, জুয়ানফ্রানের মতো ফুটবলার ডিপ ডিফেন্সে দারুণ অভ্যস্ত। অর্থাৎ বিপক্ষকে আমন্ত্রণ জানিয়েও গোলে শট মারার এতটুকু জায়গা দেবে না। পজিশন ছেড়ে বেশি ওঠে না। আবার দরকার পড়লে নো ননসেন্স খেলবে। বল পেলেই উড়িয়ে দেবে।

সিমিওনের টিমগেম

আটলেটিকো কোচ দিয়েগো সিমিওনের সবচেয়ে বড় গুণ, অনামী ফুটবলারদের নিয়েও বড় ম্যাচ জিততে পারে। ৪-১-৪-১ ছকে খেলতে ভালবাসে, আবার দরকার পড়লে ফরোয়ার্ডদেরও নীচে নামিয়ে দেয়। ওর টিমের ফুটবলাররা বারবার পজিশন পাল্টাতে অভ্যস্ত। ওর হাতে তিকিতাকা-ও ধ্বংস হয়েছে!

সিআর সেভেন

বিশ্বের কোটি কোটি ফুটবল দর্শকের মতো আজ চোখ থাকবে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর উপর। গত কয়েক বছরে রোনাল্ডোকে দুর্র্ধষ বললেও বোধহয় কম বলা হয়। হেড হোক বা ফ্রি-কিক। বাইশ গজ থেকে হোক বা ছয় গজের বক্সে। রোনাল্ডোর পায়ে বল মানেই তো বিপক্ষ গোলকিপারের মাথায় হাত আর বল সেই জালে!

Check Also

ফিফা বর্ষসেরার দৌড়ে মেসি-রোনালদো-নেইমার

স্পোর্টস ডেস্ক : প্রায় এক দশক ধরে ফুটবল বিশ্বের রাজত্ব হয় লিওনেল মেসির হাতে, নয়তো …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *