Thursday , September 21 2017
হোম / জাতীয় / জাবিতে দোকান নিয়ে ভাড়া বাণিজ্য : উচ্চমূল্যে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি

জাবিতে দোকান নিয়ে ভাড়া বাণিজ্য : উচ্চমূল্যে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি

জাবি প্রতিনিধি

JU-logo-e1408443554865

জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ে (জাবি) দোকান নিয়ে ভাড়া বাণিজ্য রমরমা হয়ে উঠেছে। এর ফলে খাবারসহ বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী উচ্চমূল্যে বিক্রি করছেন দোকানিরা। বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেইরিগেট ও প্রান্তিক গেটের দোকানগুলোতে দোকান ভাড়া বাণিজ্য এবং অস্বাভাবিক মূল্য রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রশাসন বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ কিছু ব্যক্তিকে নিজেরা ব্যবসা করবেন এই মর্মে ডেইরি গেট এবং প্রান্তিক গেটের দোকানগুলো বরাদ্দ দেয়।
দোকান বরাদ্দের শর্ত অনুযায়ী কোনো অবস্থায় কেউ দোকান অন্য কারো কাছে ভাড়া দেয়া বা হস্তান্তর করতে পারবে না বলে উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু তারা শর্ত ভঙ্গ করে দোকানগুলো উচ্চ মূল্যে অন্যদের কাছে ভাড়া দিয়েছেন। এছাড়া দোকান ভাড়া দেয়ার সময় লক্ষ লক্ষ টাকা জামানত হিসেবে রাখছেন। এতে ভাড়া বাণিজ্য রমরমা হয়ে উঠেছে।
অফিস সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গেটের (ডেইরি গেটের) প্রত্যেকটি দোকানের মাসিক ভাড়া ১২৫০টাকা, বিশমাইল গেটের দোকানগুলো ৯৫০ টাকা, প্রান্তিক গেটের বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক নির্মিত দোকানগুলো ৩৪৫০টাকা, প্রান্তিক গেটের ১-৫নং দোকান ২৯৫০ টাকা এবং বাকি দোকানগুলোর মাসিক ভাড়া ১২৫০ টাকা। কিন্তু তারা দোকানগুলো অন্যের কাছে জামানতসহ ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা মাসিক ভিত্তিতে ভাড়া দেয়। জামানত ও দোকান ভাড়া বেশি হওয়ায় খাবারের মূল্যও বেশি হয়। এদিকে উচ্চমূল্যে ভাড়া নেয়ার কারণে এসব দোকানগুলোতে শিক্ষার্থীদের কাছে অতিরিক্ত মূল্য রাখছেন দোকানিরা। এতে একদিকে শিক্ষার্থীরা যেমন ভোগান্তির শিকার হচ্ছে অপরদিকে দোকানিদের সাথে প্রায়ই তাদের বাগবিতন্ডার ঘটনা ঘটছে।
ক্ষোভের সাথে এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘মাঝে মাঝে আমরা এখানে খেতে আসি কিন্তু তারা তাদের ইচ্ছেমতো দাম রাখছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এ দাম অন্যান্য স্থানের তুলনায় কয়েকগুণ বেশি।’ একবার শুধুমাত্র ডাল ভাত দিয়ে খেলেও প্রান্তিকের এক দোকানি তার কাছে ৫০ টাকা বিল রাখেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।
সরজমিনে দেখা গেছে, বিশ^বিদ্যালয়ের এসব স্থানের খাবারের দোকানগুলোতে মুরগির মাংস ৬০ টাকা, গরুর মাংস ৮০টাকা, বড় মাছ ৫০টাকা, ছোট মাছ ৪০টাকা ও ভর্তা ১০টাকা করে বিক্রি হচ্ছে যা ক্যাম্পাসের অন্যান্য স্থানের দোকানগুলোর মূল্যের চেয়ে অনেক বেশি।
ডেইরিগেটের এক দোকানি দাম বেশি রাখার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ‘ক্যাম্পাসের অন্যান্য স্থানের তুলনায় আমাদের আনুষঙ্গিক খরচ একটু বেশি এজন্য বেশি মূল্য রাখতে বাধ্য হচ্ছি।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রান্তিক গেটের এক দোকানি জানান, ‘প্রশাসনের কাছ থেকে এক ব্যক্তি দোকান বরাদ্দ নিয়ে পুনরায় তার কাছে ভাড়া দিয়েছেন ৯ হাজার টাকার বিনিময়ে।’ তবে তাদের কারো কাছেই বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন নির্ধারিত কোনো খাবার মূল্য তালিকা নেই বলেও জানান তিনি।
এদিকে দোকান ভাড়া বাণিজ্য ছাড়াও চুক্তি ভঙ্গ করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ, দোকান বর্ধিতকরণ, অনুমতি ছাড়া ব্যবসার ধরণ পরিবর্তনসহ নানা অনিয়মে জড়িত রয়েছে এসব দোকানের মালিকরা। দোকান বরাদ্দের শর্তানুযায়ী কেউ অনুমতি ছাড়া ব্যবসার ধরণ পরিবর্তন এবং দোকান একাধিক অংশে ভাগ করে একাধিক ব্যবসা করতে পারবেনা। কিন্তু অধিকাংশ দোকানি অনুমতি না নিয়ে ব্যবসার ধরণ পরিবর্তন করেছে এবং একসাথে একাধিক ব্যবসা করছে। ডেইরি গেটের ১৫ টি দোকান এবং প্রান্তিক গেটের ২২ টি দোকান নিয়ম বহির্ভূতভাবে বর্ধিত করেছে বলে জানা গেছে।
জানা যায়, প্রশাসন অধিকাংশ ক্ষেত্রে বিশ^বিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এসব দোকান বরাদ্দ দিয়েছে। ফলে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন যখনই এসব অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার উদ্দোগ নেয় ক্ষমতাধর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দেনদরবারের কারণে তা সম্ভব হয়না।
বিশ^বিদ্যালয় এস্টেটের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. নুরুল আমিন বলেন, ‘উপাচার্য সকল অবৈধ স্থাপনা  ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন। পর্যায়ক্রমে শর্ত বর্হিভূত কার্যক্রমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’  মূল্য বেশি রাখার বিষয়ে তিনি জানান, ‘৫ বছর আগে হোটেলগুলোতে মূল্য তালিকা দেয়া হয়েছিল কিন্তু তাদেরকে যে মূল্য তালিকা দেয়া হয়েছিল তা তারা অনুসরণ করে না।’ নতুন করে মূল্য তালিকা দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।
এ বিষয়ে রেজিস্ট্রার আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ‘বহু বছর ধরে আমরা দোকান ভাড়া দিয়ে খুব সামান্য অর্থ পায়। এবার আমরা ভাড়া বৃদ্ধি করেছি কিন্তু দোকান মালিকরা এখনো বর্তমান ভাড়া পরিশোধ করেনি বরং ভাড়া কমানোর জন্য তৎপরতা চালাচ্ছে। তবে তারা যদি নিজেরা অন্যদের দোকান ভাড়া দেয় তবে তা অনৈতিক।’

Check Also

৩৬ ও ৩৭তম বিসিএসের ফল অক্টোবরে

অনলাইন ডেস্ক : সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে ৩৬তম বিসিএসের চূড়ান্ত ও ৩৭তম বিসিএস লিখিত পরীক্ষার ফলাফল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *