Saturday , September 23 2017
শিরোনাম
হোম / ব্যবসা বানিজ্য / দুই ঘণ্টায় বাংলাদেশের নতুন রূপ দেখছে থাইল্যান্ড

দুই ঘণ্টায় বাংলাদেশের নতুন রূপ দেখছে থাইল্যান্ড

অর্থনীতি ডেস্ক :

আসিয়ান দেশগুলোর বিনিয়োগকারীদের সামনে বাংলাদেশে রফতানি বাণিজ্যের সম্ভাবনা তুলে ধরতে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে বসেছে বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট এক্সপো ২০১৬। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রিটেনসহ পশ্চিমের দেশগুলোতে পণ্য ও সেবা রফতানি করে আসছে এমন ৫৫টি বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে পূর্বের এই আয়োজনে। পাশাপাশি থাইল্যান্ডে বাংলাদেশের দূতাবাস এই আয়োজনে দর্শনার্থীদের সামনে বাংলাদেশের সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যের নানা দিক তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছে।

1 (1)

বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এবং থাইল্যান্ডের বাণিজ্য মন্ত্রী এপিরাদি টানট্রাপর্ন গত সোমবার ব্যাংককের ঐতিহ্যবাহী কুইন সিরিকিত ন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে তিন দিনের এই ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট এক্সপো উদ্বোধন করেছেন। ঢাকায় প্রতিবছর থাই বাণিজ্য মেলা আয়োজন করা হলেও দুই দেশের ৪৪ বছরের কূটনৈতিক সম্পর্কের ইতিহাসে বাংলাদেশের পণ্য নিয়ে ব্যাংককে এই ধরনের ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট এক্সপো আয়োজন এবারই প্রথম।

থাইল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সাঈদা মুনা তাসনিম বলেন, থাইল্যান্ডে বাংলাদেশ সম্পর্কে যে নেতিবাচক ধারণা প্রচলিত রয়েছে তা আমরা বদলে দিতে চাই এই ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট এক্সপোর মধ্য দিয়ে। আমরা উভয় দেশের মানুষের মধ্যে যোগাযোগ বাড়াতে চাই নিয়মিত ভাবে এই ধরনের আয়োজন করার মাধ্যমে।

মেলার প্রথম দিন বাংলাদেশ ও থাইল্যান্ডের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির বিষয়ে উচ্চ পর্যায়ে প্যানেল আলোচনায় অংশ নিয়েছেন বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, থাইল্যান্ডের শিল্প মন্ত্রী আটচাকা সিবুন রুয়াং, বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, থাইল্যান্ডের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক ভাইস মিনিস্টার পানসাক সিরিরুচাটাপংসহ দুই দেশের শীর্ষ পর্যায়ের ব্যবসায়ী নেতারা। বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে এই আয়োজনে।

1 (2)

পণ্য পসরার পাশাপাশি বাংলাদেশের সংগীত ও নৃত্যকে থাই দর্শকদের সামনে হাজির করতে ব্যাংককে উপস্থিত হয়েছেন ২০ সদস্যের একটি সাংস্কৃতিক প্রতিনিধি দল। মেলার একটি পর্বে ফ্যাশন শোর মাধ্যমে তুলে ধরা হবে বাংলাদেশের সিল্কের গল্প। বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের ভাষায়, বাংলাদেশের এই ঐতিহ্যবাহী সিল্ক শিল্প থাইল্যান্ডের জনপ্রিয় সিল্কের সঙ্গে পাল্লা দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। আমাদের দুই দেশের মানুষের মধ্যে অনেক বিষয়ে মিল রয়েছে। নিকট প্রতিবেশী এই দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে অভাবটা শুধু যোগাযোগের। থাই নাগরিকরা আমাদের সম্পর্কে খুব বেশি জানেন না। জানলেও তাদের মধ্যে অনেকেই বাংলাদেশকে নেতিবাচক রাষ্ট্র মনে করেন। তাই এই আয়োজনে আমাদের অন্যতম স্লোগান দুই ঘণ্টায় দেখুন বাংলাদেশ।

থাইল্যান্ডে বাংলাদেশের ঔষধ ও তৈরি পোশাক রফতানি এবং বাংলাদেশের জ্বালানি খাতে থাই বিনিয়োগের সম্ভাবনা নিয়ে রয়েছে আলাদা আলোচনার আয়োজন। বাংলাদেশের পাট ও পাটজাত দ্রব্য, রেশম শিল্প, তুলা শিল্প, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, সিরামিক শিল্প, পর্যটন, কৃষিপণ্য, হিমায়িত মাছ, আসবাব শিল্প, জাহাজ নির্মাণ শিল্প এবং টেলিযোগাযোগ খাতের বাণিজ্য সম্ভাবনার দিকগুলো বাংলাদেশ এক্সপোতে তুলে ধরা হচ্ছে।

Bangladesh+Ambassador+to+Thailand+Saida+Muna+Tasneem

এছাড়া এই আয়োজনের অন্যতম উদ্যোক্তা রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো বাংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোর কথা থাই বিনিয়োগকারীদের সামনে তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছে এই ট্রেড এক্সপোর মধ্য দিয়ে। রাষ্ট্রদূত সাঈদা মুনা তাসনিম বলেন, বাংলাদেশের ক্রম বিকাশমান এবং গুরুত্বপূর্ন জ্বালানি, টেলিযোগাযোগ ও পর্যটন এই তিন খাতকে প্রদর্শনীতে বিনিয়োগের জন্য বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ যে শিল্প উৎপাদনে এগিয়ে যাচ্ছে এবং দেশটিতে যে নিরাপদ বিনিয়োগের বিপুল পরিমান সম্ভাবনা রয়েছে সেই বিষয়ে থাইল্যান্ডের নীতি নির্ধারক ও ব্যবসায়ীদের খুব বেশি জানা নেই। আমরা এই আয়োজনের মাধ্যমে এই বিষয়ে তাদের মনোযোগ আকর্ষন করতে চাই। আমরা তাদের দেখাতে চাই জাপান ও চীনা বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে নিরাপদে ব্যবসা করতে আসছেন।

আসিয়ান দেশগুলোতে বাণিজ্য প্রসারে থাইল্যান্ড বাংলাদেশের জন্য প্রবেশ দ্বার হিসেবে কাজ করতে পারে বলে মনে করেন রাষ্ট্রদূত মুনা। প্রতিদিন স্থানীয় সময় সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত বাংলাদেশ এক্সপো দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত রয়েছে।

Check Also

চালের দাম পাইকারিতে কমছে, খুচরা বাজারে প্রভাব নেই

অর্থনীতি ডেস্ক : চাল ব্যবসায়ী ও সরকারের মধ্যে বৈঠক, প্রশাসনের বিশেষ নজরদারি ও অভিযান শুরুর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *