Saturday , September 23 2017
শিরোনাম
হোম / উপ-সম্পাদকীয় / দেশরত্ন থেকে বিশ্বরত্ন……..

দেশরত্ন থেকে বিশ্বরত্ন……..

Upo-sompadokioযার জন্ম না হলে আমরা এ সোনার বাংলা পেতাম কিনা জানিনা, যার জন্ম না হলে আমাদের এ জন্মভূমি কোনদিন মুক্ত হতো কিনা জানিনা, যার জন্ম এনে দিয়েছিল বিপ্লব, যার জন্ম এনেদিয়েছি স্বাধীনতা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী, বাঙালীর রাখাল রাজা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন সোনার বাংলা গড়তে, চেয়েছিলেন সাম্য, স্বাধীনতার আলোকে বিশ্বের বুকে বাংলাদেশকে সর্বোচ্চ মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করতে, জাতির পিতা যখন সদ্য স্বাধীন, যুদ্ধ- বিধ্বস্ত দেশকে বিনির্মাণের পথে এগিয়ে নিয় যাচ্ছেন, সারা বিশ্ব যখন অবাক দৃষ্টিতে থাকিয়ে,সারা বিশ্বের মানুষ যখন বঙ্গবন্ধুর কথা বলে, আর ঠিক তখন এ দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারী,বিদেশী শক্তির দালাল, একদল বিপথগামী ঘাতক সেনার নির্মম বুলেট ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা কে বাঁচতে দেয়নি, আমরা হারিয়েছি জাতির পিতাকে। নির্মম বুলেট বাঁচতে দেয়নি বঙ্গমাথা সহ পরিবারের প্রায় সকল সদস্যদদের।

১০ বছরের নিষ্পাপ শিশু শেখ রাসেলের মায়াবী মুখও ওদের বুলেটের গতিরোধ করতে পারেনি, ওরা হায়েনার মত হত্যা করেছে শিশু শেখ রাসেলকে। সে দিন দেশরত্ন শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা বিদেশ থাকার কারনে প্রাণে বেঁচে গেলেও আমরা হারিয়েছি আমাদের পিতাকে,বিশ্ব হারিয়েছে এক মহান নেতাকে। ওরা চেয়েছিল বঙ্গবন্ধু কে হত্যা করে সোনার বাংলা ধ্বংস করতে,যার ফলশ্রুতিতে জিয়ার অবৈধ সামারিক শাসনামলে হত্যা করা হয়েছে এ দেশের বহু দেশপ্রেমিক মানুষকে, যে জিয়া চেয়েছিল বঙ্গবন্ধুর নাম ও নিশানা মুছে ফেলতে,এ দেশকে পাকিস্তান বানাতে,যার জন্য প্রতিষ্ঠিত করেছিল রাজাকারদের। জিয়া দেশরত্ন শেখ হাসিনা কে ১৯৮১ সালের আগে দেশে আসতে দেয়নি।বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী হয়ে, ১৯৮১ সালের ১৭ মে বৃষ্টি ভেজা দিনে অশ্রুসিক্ত নয়নে যখন প্রিয় নেত্রী দেশের মাটিতে নামলেন তখন আকাশ ও তার কান্না থামতে পারেনি কেঁদেছিল বৃষ্টি হয়ে, রাজপথে ছিল লাখো জনতার ঢ্ল, কোটি বাঙালী পেয়েছিল ফিরে তাদের আশার আলো।

প্রিয় নেত্রী বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ সোনার বাংলার স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে ঝাপিয়ে পড়লেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগকে সংগঠিত করতে, তার সুযোগ্য নেতৃত্ব, গঠনতান্ত্রিক আন্দোলন, সুতীক্ষ্ণ মেধা ও দূরদৃষ্টি ১৯৯৬ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়। ১৯৯৬ -২০০০ বাংলাদেশ পেয়েছিল দেশরত্নের নেতৃত্বে উন্নয়ন আর সুশাসন আর ২০০১-২০০৫ বিএনপি -জামাতের দূ:শাসন,লুণ্ঠন আর হত্যার রাজনীতি,জঙ্গি উত্থান, ২১ আগস্ট এর ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা আবারো প্রমাণ করে বিএনপি- জামাতের শেষ ইচ্ছা, আর ১/১১ পরবর্তী প্রায় ২ বছরের সামারিক শাসনে দেশ যখন পিছিয়ে প্রিয় মমতাময়ী নেত্রী তখন জেলে। কিন্তু প্রিয় নেত্রীকে মুক্ত করতে আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে সারা দেশে, অবশেষে প্রিয় নেত্রী মুক্ত হয়।

২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ জয় লাভ করে দুই-তৃতীয়াংশ আসন নিয়ে বিপুল ভোটের ব্যাবধানে। দেশরত্ন শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে ২০০৮ সাল থেকে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে উন্নয়নের গতিধারায়। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর স্বপ্ন নয় বাস্তব, আজ আমরা উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে তথ্য- প্রযুক্তি ব্যবহার করছি,বিশ্ব এখন হাতের মুঠোয় তা একমাত্র দেশরত্নের জন্যই সম্ভব হয়েছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের উন্নয়ন সক্ষমতা দেখলেই বুঝা যায় দেশ সামগ্রিক দিক দিয়ে কতটা উন্নয়ন ঘটেছে, আজ আমাদের দেশের জিডিপি বৃদ্ধি পেয়েছে ৬ শতাংশের উপর,বিনিয়োগ সহ, অবকাঠামো উন্নয়ন, তিস্তা সেতু, ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগে ফ্লাইওভার নির্মাণ, সারা দেশে রাস্তাঘাট, স্কুল -কলেজ নির্মাণ, শিক্ষা ব্যবস্থার মাণোন্নয়ন সহ,সামাজিক, রাজনৈতিক ও চাকরী ক্ষেত্রে নারীর ক্ষমতায়ন বৃদ্ধি, কর্ম সংস্থান বৃদ্ধি সহ সার্বিক উন্নয়নকাজ দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে বিশ্ব দরবারে রোল মডেলে রুপান্তরিত করেছে। সারা বিশ্বের প্রভাবশালী নেতৃত্ব দেশরত্ন শেখ হাসিনার যোগ্যতাকে স্যালুট করেছে।

জি ৭ সম্মেলনে সারা বিশ্বের প্রভাবশালী দেশগুলোর সংগঠন, বিশ্বসেরা নেতৃবৃন্দের সাথে সম্প্রতি দেশরত্ন শেখ হাসিনার জাপান সফরে তার অনন্য ভূমিকায় বলে দেয় তিনি শুধু আমাদের দেশরত্নই নয় তিনি তার যোগ্যতায় আজ হয়েছেন বিশ্বরত্ন…. জলবায়ুর পরিবর্তন মোকাবেলার জন্য , বৈশ্বিক পরিবর্তন ও পরিবেশ নিয়ে দেশরত্ন শেখ হাসিনার ভুমিকা প্রশংসিত হয়েছে সারা বিশ্বে। আজ তিনি শুধু বাংলাদেশের নিপেড়িত মানুষেরই শক্তি নয় শক্তি স্বল্পোন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলির,শক্তি সারা বিশ্বের শোষিত জনতার…… বাংলাদেশ ধন্য, শেখ হাসিনার জন্য জয়তু দেশরত্ন… জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু জয় হোক জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার।

আব্দুল্লাহ আল কাইয়ুম
উপ-প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক 
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

Check Also

ওরা আর হাসবে না

অনলাইন ডেস্ক : সেনারা বোমা মেরে বাড়ি উড়িয়ে দিয়েছে। বোমা মারা আগেই আমরা বাড়ি থেকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *