Saturday , November 25 2017
শিরোনাম
হোম / আন্তর্জাতিক / শনিবারই অন্তবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শাহবাজের অনুমোদন

শনিবারই অন্তবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শাহবাজের অনুমোদন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :সমস্ত দিক বিবেচনা করে অন্তবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নওয়াজ শরীফের দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ (পিএমএলএন-নওয়াজ) পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরীফকেই বেছে নেওয়ার পরিকল্পনা করছে বলে দাবি করেছে সে দেশের সংবাদমাধ্যম এক্সপ্রেস ট্রিবিউন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পিএমএলএন পার্লামেন্টারি দলের অভ্যন্তরীণ সূত্র ব্যবহার করে এই সম্ভাব্য সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে পাকিস্তানের ট্রিবিউন।

পাকিস্তানের প্রভাবশালী পত্রিকা ডন-এর অনলাইন সংস্করণে বলা হয়েছে, অযোগ্য ঘোষণার পর দলের সিনিয়র নেতাদের নিয়ে জরুরি বৈঠক করেন নওয়াজ। সেখানে তার ছোট ভাই শাহবাজ শরীফকে নতুন প্রধানমন্ত্রী পদে সুপারিশ করেন। তার এ প্রস্তাবে বৈঠকে উপস্থিত কেউই দ্বিমত প্রকাশ করেন নি। উল্টো তারা নওয়াজের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন। তবে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো ঘোষণা দেয় নি পিএমএলএন বা পদস্থ কোনো কর্মকর্তা। প্রকৃতপক্ষে দল থেকে এখনও শাহবাজ শরীফকে মনোনয়ন দেয়া হয় নি।
তবে পিএমএলএন পার্লামেন্টারি দলের অভ্যন্তরীণ সূত্রকে উদ্ধৃত করে এক্সপ্রেস ট্রিবিউন বলছে, শনিবার অন্তবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আনুষ্ঠানিক অনুমোদন পেতে পারেন শাহবাজ। মনোনয়ন পাওয়ার পর তার প্রধানমন্ত্রিত্বর বিষয়টি জাতীয় পরিষদের ভোটে পাস হতে হবে। পাকিস্তানের পার্লামেন্টে পিএমএলএনের একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় তারা যাকেই মনোনয়ন দিক না কেন, তিনিই নির্বাচিত হবেন। তাই শাহবাজ শরিফের প্রধানমন্ত্রিত্ব নিশ্চিত বলেই ধরে নেওয়া হচ্ছে।

সম্ভাব্য অর্ন্তবর্তী প্রধানমন্ত্রীর তালিকায় শাহবাজ শরিফ ছাড়াও আরও কয়েকজনের নাম এসেছিল। তাদের মধ্যে প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাজা আসিফ, জাতীয় পরিষদের স্পিকার সরদার আইয়াজ সাদিক, পরিকল্পনা ও উন্নয়নমন্ত্রী আহসান ইকবাল, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলী খান প্রমুখ উল্লেখযোগ্য। এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, এদের কারও দেশটির নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর সঙ্গে সুসম্পর্ক নেই বলে তাদের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে দূরে থেকেছে নওয়াজের দল। দীর্ঘদিন ধরে কন্যা মারিয়াম নওয়াজ শরিফকে নিজের রাজনৈতিক উত্তরসূরী হিসেবে প্রস্তুত করছিলেন নওয়াজ। তবে মারিয়াম নির্বাচিত এমপি না হওয়ায় এই মুহূর্তে তার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সুযোগ নেই।

২০১৩ সালের জুন থেকে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন শাহবাজ। এর আগে ১৯৯৭-৯৯ এবং ২০০৮-২০১৩-র মার্চ পর্যন্ত তিনি মুখ্যমন্ত্রীর পদে ছিলেন। ১৯৮৫ সালে তিনি লাহোর চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি-র সভাপতি নির্বাচিত হন। দক্ষ প্রশাসক হিসাবে তার যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী হতে গেলে তাকে আগে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়তে হবে।

Check Also

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক চায় চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সঙ্গে চীন আরও নিবিড় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *