Friday , November 24 2017
শিরোনাম
হোম / রাজনীতি / চার সাক্ষীকে জেরার অনুমতি পেলেন খালেদা

চার সাক্ষীকে জেরার অনুমতি পেলেন খালেদা

অনলাইন ডেস্ক  :  জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় চারজন সাক্ষীকে জেরার অনুমতি চেয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আবেদন মঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মো. শওকত হোসেন ও বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের বেঞ্চ রবিবার (৩০ জুলাই) এই আদেশ দেন।

এই চার সাক্ষী হলেন- তিন ব্যাংক কর্মকর্তা শেখ মকবুল আহমদ, আমিরুল ইসলাম, অমল কান্তি দে ও দুদক কর্মকর্তা চৌধুরী এম এন আলম। এখন তাদেরকে জেরা করতে পারবেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। এছাড়া আরেক সাক্ষী সাইফুল ইসলামের আবেদনে ক্রমিক নং ভুল থাকায় তাকে জেরার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি জয়নুল আবেদীন, ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরী ও অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন ভূঁইয়া।

পরে খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরী  টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন, এই চার সাক্ষীকে জেরার সুযোগ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। তাই জেরার জন্য সাক্ষীদেরকে হাজির করতে বিচারিক আদালতকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জিয়া চ্যারিটেবল মামলায় ৫ জন সাক্ষীকে জেরার আবেদন গত ৫ জুন বিচারিক আদালত নাকচ করে দেন। বিচারিক আদালতের এই আদেশের বিরুদ্ধে এরপর গত ২৩ জুন খালেদা জিয়ার পক্ষে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিভিশন আবেদনটি করা হয়। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতেই হাইকোর্ট আজ এই আদেশ দিলেন।

মামলাটি বর্তমানে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। দুদকের পক্ষের ৩২ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়েছে। এখন তদন্ত কর্মকর্তাকে জেরা করছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।

মামলার বিবরণী থেকে জানা যায়, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে আসা ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় এই মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

খালেদা জিয়া ছাড়া অন্য চার আসামি হলেন-তার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছের তখনকার সহকারী একান্ত সচিব, বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হারুন-অর-রশিদ ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। পরের বছরের ১৯ মার্চ অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে আসামিদের বিচার শুরু হয়।

Check Also

বিএনপির ভবিষ্যৎ ভালো নয়: কাদের

অনলাইন ডেস্ক : ‘বিএনপি আবার আন্দোলনে যাচ্ছে’ এমন ইঙ্গিত প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *