Thursday , September 21 2017
হোম / সারা বাংলা / সিরাজগঞ্জে গৃহবধূর আত্মহত্যা

সিরাজগঞ্জে গৃহবধূর আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক : মাদকাসক্ত স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়ির নির্যাতন সইতে না পেরে সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে তাকমিনা খাতুন নামে এক গৃহবধূ বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন। তবে নিহতের পরিবারের অভিযোগ যৌতুক মামলা তুলে না নেয়ায় মারপিট ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়ায় সে আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনার পর থেকেই ওই স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে রায়গঞ্জ উপজেলার চান্দাইকোনা ইউনিয়নের মোজাফপুর (মজুপুর) গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত তাকমিনা খাতুন ওই গ্রামের ফজল খানের মেয়ে। বুধবার বিকালে নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ।

নিহতের পরিবার বলছে, রায়গঞ্জ উপজেলার চান্দাইকোনা ইউনিয়নের মোজাফপুর (মজুপুর) গ্রামের ফজল খানের মেয়ের সাথে একই ইউনিয়নের পূর্ব পাইকড়া গ্রামের মতি তালুকদারের ছেলে রাশিদুল ইসলামের সাথে প্রায় ১৬ বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর কিছুদিন ভালোই চলে তাদের সংসার। এরপর তাদের সংসারজীবনে সাগর ও শিহাব নামে দুইটি পুত্র সন্তান জন্মগ্রহণ করে। স্ত্রী-সন্তান থাকা সত্ত্বেও রাশিদুল পরপর দুটি বিয়ে করেন। এতে প্রায় তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হতো। এতকিছু সহ্য করার পরও মাদকাসক্ত স্বামী রাশিদুল ইসলাম গৃহবধূ তাকমিনার পরিবারের কাছে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক হিসেবে দাবি করেন। দাবির টাকা না দেয়ায় মাঝেমধ্যেই রাশিদুল ও তার পরিবারের লোকজন তাকমিনাকে মারপিট ও বিভিন্নভাবে মানসিক নির্যাতন করে। নির্যাতন সইতে না পেরে তিন মাস আগে দুটি সন্তানকে নিয়ে তাকমিনা তার বাবার বাড়িতে চলে আসেন এবং পরিবারের সদস্যদের কথা বলে ২০১৬ সালে স্বামী রাশিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এরপর থেকেই স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন মামলাটি তুলে নেয়ার জন্য নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করে তাকমিনার পরিবারকে।

মঙ্গলবার ছিল মামলাটির তারিখ। এই তারিখেই মামলাটি তুলে নেয়ার জন্য মঙ্গলবার দুপুরে শ্বশুড়বাড়িতে আসেন রাশিদুল ইসলাম। কৃষক পিতা ফজল খান বাড়িতে না থাকায় তাকমিনাকে জোর করে মামলাটি তুলে নেয়ার জন্য চাপ দেয়। কিন্তু তার কথায় তাকমিনা রাজি না হওয়ায় তাকে মারপিট করে এবং যৌতুক মামলাটি তুলে না নিলে তাকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দিয়ে চলে যায়। স্বামীর নির্যাতন ও শ্বশুর-শাশুড়ি অপমান সইতে না পেরে তাকমিনা রাতেই বিষপান করেন। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় পরিবারের লোকজন তাকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার ভোরে মারা যায়।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। বিকাল সাড়ে ৩টায় ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করে।

এ ঘটনায় সিরাজগঞ্জ সদর থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।

Check Also

উল্লাপাড়ায় ফলদ বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে ফলদ বৃক্ষ মেলা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *