Saturday , September 23 2017
শিরোনাম
হোম / সারা বাংলা / ফুলবাড়ী সীমান্তে ফের কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের কাজ শুরু করলো বিএসএফ

ফুলবাড়ী সীমান্তে ফের কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের কাজ শুরু করলো বিএসএফ

অনলাইন ডেস্ক : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার খলিশাকোটাল সীমান্তের নো-ম্যানস ল্যান্ডে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ শুরু করেছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিএসএফ। বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) কুড়িগ্রাম ৪৫ বিজিবি বালারহাট বিওপির হাবিলদার ইয়াহিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘বাংলা‌দেশ সরকা‌রের অনু‌মোদন সাপে‌ক্ষে সি‌ঙ্গেল ফেজ কাঁটাতা‌রের বেড়া নির্মাণ কর‌ছে বি‌এসএফ।’

এলাকাবাসী ও বিজিবি সূত্রে জানা যায়, উপজেলার খলিশাকোটাল সীমান্তে আন্তর্জাতিক মেইন পিলার নম্বর ৯৩৪ থেকে ১১ (এস) পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার এলাকায় কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের কাজ শুরু ক‌রে‌ছে বিএসএফ। প্রায় ১৫ বছর আগে ওই এক কিলোমিটার ফাঁকা জায়গাটি বাদ দিয়ে সেখানকার বাকি সব জায়গায় কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করে ভারতীয় সরকার। তখন ওই জায়গাটি‌তে কোচবিহার জেলার ‌দিনহাটা থানাধীন কুশ্যাহাট থে‌কে দিনহাটা যাওয়ার সড়ক ও ভারতীয় নীলকুমার নদী থাকায় কাঁটাতারের বেড়া দেওয়া হয়নি।

সং‌শ্লিষ্ট সুত্রে আরও জানা যায়, ই‌তোপূ‌র্বে কয়েকবার বিএসএফ সদস্যরা ওই নো-ম্যানস ল্যান্ডে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করার চেষ্টা করলে বাংলাদেশি সীমান্তরক্ষী বা‌হিনী (বিজিবি)-এর বাধার মুখে তা ব্যর্থ হয়ে যায়। অবশেষে ১৫ বছর পর গত ১৩ সে‌প্টেম্বর ভারতীয় কোচবিহার জেলার দিনাহাটা থানাধীন নটকোবাড়ী ও বসকোটাল ক্যাম্পের ‌বিএসএফ সদস্যরা কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ শুরু করেছে।

বিএসএফ’র কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের খবর পে‌য়ে বিজিবি বালারহাট ক্যাম্পের  সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রতিবাদ জানালে কাঁটাতা‌রের বেড়া নির্মা‌ণে বাংলা‌দেশ সরকা‌রের অনু‌মোদন র‌য়ে‌ছে ব‌লে জানায় বিএসএফ সদস্যরা।
এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম ৪৫ বিজিবি বালারহাট বিওপির হাবিলদার ইয়াহিয়া জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছি। প‌রে আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানালে মন্ত্রণালয় থেকে সিঙ্গেল কাঁটাতারের বেড়া নির্মা‌ণের অনুমতি দেওয়া হয়েছে ব‌লে জানায় কর্তৃপক্ষ।

Check Also

ময়মনসিংহে পরকীয়ার বলি আজিজ

অনলাইন ডেস্ক : ময়মনসিংহে ফুলপুর থানা পুলিশের উদ্ধার করা অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশের পরিচয় মিলেছে। আজিজুর রহমান আজিজ তারাকান্দাউপজেলার পাইন্নাবর গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *