Saturday , September 23 2017
শিরোনাম
হোম / সারা বাংলা / জনবল সংকটে রাজশাহী পরিবেশ অধিদফতর

জনবল সংকটে রাজশাহী পরিবেশ অধিদফতর

অনলাইন ডেস্ক : জনবল সংকটে রাজশাহী পরিবেশ অধিদফতর। এতে ব্যাহত হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটির স্বাভাবিক কার্যক্রম। ১৩ পদের বিপরীতে কর্মরত মাত্র নয়জন।

সীমিত এই জনবল নিয়ে রাজশাহীসহ নওগাঁ ও নাটোরে কার্যক্রম পরিচালনা করছে প্রতিষ্ঠানটি। সংশ্লিষ্টদের ভাষ্য, এ জনবল দিয়েই তারা সাধ্য মতো দায়িত্ব পালন করছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর দিকগুলো মনিটরিংয়ের দায়িত্ব পরিবেশ অধিদফতরের। পরিবেশ সংরক্ষণ ও উন্নয়নের মাধ্যমে প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা, দূষণ-অবক্ষয়মূলক সকল কার্যক্রম চিহ্নিতকরণ এবং নিয়ন্ত্রণের আওতাভুক্ত।

এছাড়া প্রাকৃতিক সম্পদের টেকসই, দীর্ঘমেয়াদী ও পরিবেশসম্মত ব্যবহারের নিশ্চয়তা বিধান, পরিবেশ সংক্রান্ত সকল আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক উদ্যোগের সঙ্গে সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করবে পরিবেশ অধিদফতর।

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত দুর্যোগ মোকাবেলায় অভিযোজন কার্যক্রম গ্রহণ ও বাস্তবায়ন এবং মানুষকে পরিবেশবান্ধব হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করার কথা এ দফতরের।

কিন্তু জনবল সংকটে নজরদারি ছাড়াও রাজশাহী অঞ্চলে ব্যাহত হচ্ছে এসব কার্যক্রম। আর এ সুযোগ নিয়েছেন অসাধু ব্যক্তিরা। যত্রতত্র গড়ে উঠেছে অননুমোদিত ইটভাটা ও শিল্প প্রতিষ্ঠান। এদের বিরুদ্ধে তেমন ব্যবস্থাও নিতে পারছে না পরিবেশ অধিদফতর।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিভাগের নাটোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে পরিবেশ অধিদফতরের কোনো অফিস নেই। রাজশাহী থেকেই চলে এ দুই জেলার কার্যক্রম। এর মধ্যে রাজশাহী পরিবেশ অধিদফতরে বিভিন্ন পদে কর্মরত মাত্র ৯ জন। নেই সিনিয়র কেমিস্ট এবং সহকারী পরিচালক। গবেষণা সহকারী ও নমুনা সংগ্রহকারীর পদও শূন্য। এতে ব্যাহত হচ্ছে নিয়মিত কার্যক্রম। দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা চলে আসায় সেবা গ্রহীতারা পড়ছেন চরম ভোগান্তিতে।

এদিকে, রাজশাহী পরিবেশ অধিদফতরের সর্বশেষ হিসেবে, রাজশাহী, নাটোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে ইটভাটা রয়েঠে ৮২৯টি। এর মধ্যে ১৭০টি ১২০ ফিট এবং ২৩৭টি ১৩০ ফিট উচ্চতার স্থায়ি চিমনির ইটভাটা।

সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী এর সবগুলোকেই অবৈধ্য বলছে পরিবেশ অধিদফতর। এছাড়া ৪১৫টি জিগজ্যাগ এবং ৭টি হপম্যান হাউব্রিড ইটভাটা রয়েছে এ অঞ্চলে।

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, অধিকাংশ ইটভাটা গড়ে উঠেছে লোকালয়ে। কোথাও কোথাও বিদ্যালয় আঙিনায় গড়ে উঠেছে ইটভাটা। ফসলি জমি উজার করে নতুন নতুন ইটভাটা গড়ে উঠছে এ অঞ্চলে। বরাবরই ফসলহানির শিকার হচ্ছে চাষিরা। তারপরও অবৈধ এসব ইটভাটার বিরুদ্ধে তেমন ব্যবস্থা নেয়নি পরিবেশ অধিতফতর।

তবে বিষয়টি মানতে নারাজ এখানকার কর্মকর্তারা। তারা বলছেন, ইটভাটা প্রস্তুত আইনে নিয়মিত ব্যবস্থা নিচ্ছে পরিবেশ অধিদফতর। জেল জরিমানাও হচ্ছে আইন ভঙ্গকারীদের।

গত অর্থবছরের মোট চারদিনে ১৮টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। এতে জরিমানা আদায় হয়েছে ৭ লাখ ৫৪ হাজার ৫০০ টাকা।

এছাড়া ২৩ দিনে ৪৬টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার বন্ধে। জব্দ করে ধ্বংস করা হয়েছে দুই হাজার ৬৯২ কেটি পলিথিন ব্যাগ।

এতেও জরিমানা হয়েছে ২ লাখ ৫০ হাজার ৫০০ টাকা। এর বাইরে পাটজাত পণ্যের ব্যবহার বিষয়ক ৫টি ভ্রাম্যমাণ আদালতে আদায় করা হয়েছে এক লাখ ১৫ হাজার টাকা জরিমানা।

রাজশাহী পরিবেশ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মামুনুর রশীদ বলেন, চিঠি দিয়ে জনবল সংকটের বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছেন তারা। তবে জনবল নিয়োগ হয়নি। তবে তারা এ জনবল দিয়েই স্বাভাবিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। কার্যক্রমে গতি আনতে প্রথম শ্রেণির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ আরও জনবল দরকার বলে জানান এই কর্মকর্তা।

Check Also

ময়মনসিংহে পরকীয়ার বলি আজিজ

অনলাইন ডেস্ক : ময়মনসিংহে ফুলপুর থানা পুলিশের উদ্ধার করা অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশের পরিচয় মিলেছে। আজিজুর রহমান আজিজ তারাকান্দাউপজেলার পাইন্নাবর গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *