Saturday , November 25 2017
শিরোনাম
হোম / বিনোদন / আদালতে কাঁদলেন কণ্ঠশিল্পী মিলা

আদালতে কাঁদলেন কণ্ঠশিল্পী মিলা

বিনোদন ডেস্ক : স্বামীর বিরুদ্ধে দায়ের করা যৌতুক আইনের মামলায় জামিন নামঞ্জুর চেয়ে আদালতে কেঁদেছেন কণ্ঠশিল্পী মিলা ইসলাম।

সোমবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মো. কামরুল হোসেন মোল্লার আদালতে আসামি পারভেজ সানজারির জামিন আবেদনের শুনানির সময় এই ঘটনা ঘটে।

ঢাকা সিএমএম আদালতে এ আসামির দুই দফা জামিন আবেদন নামঞ্জুর আদেশের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করা হয়।

সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে ওই জামিন আবেদনের ওপর শুনানি হয়। এ সময় আদালতে উপস্থিত হন মামলার বাদিনী কণ্ঠলিল্পী মিলা। শুনানিতে মিলা জামিন আবেদনের বিরোধিতা করে বলেন, বিয়ের চার দিন পর জোর করে আমাকে তালাক দিতে বলেন। আমি রাজি না হওয়ায় আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করেন। বিয়ের আগে তার (স্বামী পারভেজ সানজারি) সঙ্গে আমার ১১ বছরের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ১১ বছরে কোনো সমস্যা হয়নি। কিন্তু বিয়ের চার দিনের মধ্যে তার আচরণ পরিবর্তন হয়ে যায়।

জামিন নামঞ্জুরের জন্য আদালতের কাছে অনুরোধ করে কান্নায় ভেঙে পড়েন এই কণ্ঠশিল্পী। ওই সময় আসামিপক্ষের আইনজীবীকে বাদিনীর সঙ্গে মীমাংসা করতে বলে আদালত। এরপর আসামিপক্ষের আইনজীবী মীমাংসার জন্য সময় প্রার্থনা করলে বিচারক আগামী ২৭ নভেম্বর জামিন আবেদনের পরবর্তী দিন ধার্য করেন।

গত ৫ অক্টোবর রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় মারধর ও যৌতুকের অভিযোগে মিলা বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলা দায়ের পরই সানজারিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরদিন পুলিশ তাকে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে। আদালত রিমান্ড ও জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে সানজারিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়। এরপর গত ৯ অক্টোবরও আদালত এ আসামির জামিন নামঞ্জুর করে।

মিলার দায়ের করা মামলায় বলা হয়, বিয়ের পর পর্যায়ক্রমে কয়েকবার এ ধরনের মারধরের ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ গত ৩ অক্টোবর তাকে মারধর করা হয়। এর আগে তার স্বামী পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক নিয়েছেন। আরও দশ লাখ টাকা দাবি করেছেন। টাকা না পেয়ে তার স্বামী তাকে মারধর করেছেন। একটি বেসরকারি এয়ারলাইন্সের পাইলট পারভেজ সানজারির সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে মিলার প্রেমের সম্পর্কের পর গত ১২ মে তারা বিয়ে করেন।

Check Also

অভিনেত্রী জেনিফার লরেন্স ও নির্মাতা ড্যারন অ্যারনোফস্কির

ছবি ব্যর্থ, সম্পর্ক শেষ!

বিনোদন ডেস্ক : প্রেমের সময় মানুষ নাকি অন্ধ হয়ে যায়। হয়তো হলিউড অভিনেত্রী জেনিফার লরেন্স …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *